ঢাকা ১০:৩৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পাংশায় গান গাইবেন লোকসংগীত শিল্পী কাঙ্গালিনী সুফিয়া।

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৪:০১:০৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মার্চ ২০২৩
  • ১৪৭ বার পড়া হয়েছে

সোহাগুর রহমান, রাজবাড়ীঃ পাংশা বাসির জন্য চমক উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি কর্তৃক আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে আসছেন জনপ্রিয় লোকসংগীত শিল্পী কাঙ্গালিনী সুফিয়া।

২১ মার্চ সন্ধ্যা ৭টায় উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি কর্তৃক আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
কাঙ্গালিনী সুফিয়া সেই নাম, যার সঙ্গে জড়িয়ে আছে পরানের বান্ধবের খোঁজে বুড়িয়ে যাওয়া এক জীবনের দীর্ঘশ্বাস।

কাঙ্গালিনী সুফিয়া ১৯৬১ সালে রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলার রামদিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন । তিনি মূলত লালন গীতি, লোকসংগীত, বাউল গান করেন । ১৯৭৫ সাল থেকে মাত্র ১৪ বছর বয়সে একতারা হাতে তিনি গান গেয়ে আসছেন। তার নিজ রচিত গানের সংখ্যা প্রায় পাঁচশত । তিনি বেশ কয়েকটি সিনেমায় কণ্ঠ দিয়েছেন এবং অভিনয় করেছেন। কাঙ্গালিনী সুফিয়া যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, দক্ষিণ কোরিয়া, থাইল্যান্ড, চীন , ভারত সহ বিভিন্ন দেশের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেছেন । বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির সাবেক মহা পরিচালক জনাব মুস্তাফা মনোয়ার তাকে কাঙ্গালিনী উপাধি প্রদান করেন । তিনি সংগীতে দেশে প্রায় ৩০ টি ও ১০ টি আন্তর্জাতিক পুরস্কার লাভ করেন ।

মজমায় মজমায় গান গেয়ে বেড়ানো সুফিয়া এক আজন্ম বাউল। কুমার নদে বস্তাবন্দী পড়ে থাকা সুফিয়া বা অনিতা হালদারের পক্ষে একজীবনে সব বাঁধা ভাঙা সম্ভব না হলেও, সব লড়াইয়ে জয় পাওয়া সম্ভব না হলেও বহু মানুষকে তিনি জুগিয়েছেন লড়াইয়ের শক্তি, যেমন করে শক্তি জুগিয়েছিলেন মুক্তিযুদ্ধের সময়।

জনপ্রিয় সংবাদ

দাঁড়ি বড় রাখায় যুবককে পেটালেন ইউপি চেয়ারম্যান ও তার ছেলে!

পাংশায় গান গাইবেন লোকসংগীত শিল্পী কাঙ্গালিনী সুফিয়া।

আপডেট সময় ০৪:০১:০৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মার্চ ২০২৩

সোহাগুর রহমান, রাজবাড়ীঃ পাংশা বাসির জন্য চমক উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি কর্তৃক আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে আসছেন জনপ্রিয় লোকসংগীত শিল্পী কাঙ্গালিনী সুফিয়া।

২১ মার্চ সন্ধ্যা ৭টায় উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি কর্তৃক আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
কাঙ্গালিনী সুফিয়া সেই নাম, যার সঙ্গে জড়িয়ে আছে পরানের বান্ধবের খোঁজে বুড়িয়ে যাওয়া এক জীবনের দীর্ঘশ্বাস।

কাঙ্গালিনী সুফিয়া ১৯৬১ সালে রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলার রামদিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন । তিনি মূলত লালন গীতি, লোকসংগীত, বাউল গান করেন । ১৯৭৫ সাল থেকে মাত্র ১৪ বছর বয়সে একতারা হাতে তিনি গান গেয়ে আসছেন। তার নিজ রচিত গানের সংখ্যা প্রায় পাঁচশত । তিনি বেশ কয়েকটি সিনেমায় কণ্ঠ দিয়েছেন এবং অভিনয় করেছেন। কাঙ্গালিনী সুফিয়া যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, দক্ষিণ কোরিয়া, থাইল্যান্ড, চীন , ভারত সহ বিভিন্ন দেশের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেছেন । বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির সাবেক মহা পরিচালক জনাব মুস্তাফা মনোয়ার তাকে কাঙ্গালিনী উপাধি প্রদান করেন । তিনি সংগীতে দেশে প্রায় ৩০ টি ও ১০ টি আন্তর্জাতিক পুরস্কার লাভ করেন ।

মজমায় মজমায় গান গেয়ে বেড়ানো সুফিয়া এক আজন্ম বাউল। কুমার নদে বস্তাবন্দী পড়ে থাকা সুফিয়া বা অনিতা হালদারের পক্ষে একজীবনে সব বাঁধা ভাঙা সম্ভব না হলেও, সব লড়াইয়ে জয় পাওয়া সম্ভব না হলেও বহু মানুষকে তিনি জুগিয়েছেন লড়াইয়ের শক্তি, যেমন করে শক্তি জুগিয়েছিলেন মুক্তিযুদ্ধের সময়।