ঢাকা ০৮:৪৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
কাতার বিশ্বকাপের খরচ শুনলে চমকে যাবেন

কাতার বিশ্বকাপের খরচ শুনলে চমকে যাবেন

যতই দিন গড়াচ্ছে দরজায় কড়া নাড়ছে যেন ফুটবল বিশ্বকাপ। প্রথমবারের মতো এবারের আসরের আয়োজক দেশ মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে ধনী রাষ্ট্র কাতার। আর তাই নতুন সব স্টেডিয়ামের সঙ্গে জাকজমকপূর্ণ সব আয়োজনে বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যয় করছে মরুভূমির উত্তপ্ত এই দেশটি। কাতার বলেছে, এবারের ফিফা বিশ্বকাপে তারা ২২০ বিলিয়ন ডলার খরচ করছে। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২২ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা। আর যা কিনা বিশ্বকাপ ইতিহাসের সবচেয়ে ব্যয়বহুল আয়োজন হতে চলছে। ২০১৮ সালে রাশিয়া যে পরিমাণ খরচ করেছে, কাতার বিশ্বকাপে তার ২০ গুণ বেশি ব্যয় হচ্ছে। শুধু তাই নয়, ১৯৯৪ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ৭ টি বিশ্বকাপের একত্রিত খরচকেও হার মানিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে আয়োজক দেশ কাতার।

অন্যদিকে রেকর্ড পরিমাণ এই ব্যয়ের পেছনে রয়েছে নানাবিধ কারণ। প্রথমত, বিশ্বকাপের জন্য অত্যাধুনিক নতুন ৮টি স্টেডিয়াম তৈরি করেছে কাতার, সেইসাথে তৈরি করা হয়েছে অনুশিলনের মাঠও। এছাড়া ফুটবলার ও দর্শকদের নানা সুবিধা দিতে বিভিন্ন হোটেল ও পার্ক বিনোদন কেন্দ্র সহ অনেক কিছুই নির্মাণ করেছে দেশটি।

প্রথমবারের মতো মধ্যপ্রাচ্যে বিশ্বকাপের আসর বসতে চলছে। নানান দেশ থেকে নানা দর্শক দেখতে আসবেন এই মহাযজ্ঞ আয়োজন, তাদের জন্য কাতার তৈরি করেছে উন্নতমানের হোটেল। এছাড়া তাদের স্টেডিয়ামে ফ্রি যাতায়াতের জন্য পরিবহন খাতেও প্রচুর অর্থ ব্যয় হয়েছে। বিনামূল্যে নামানো হয়েছে চার হাজার বাস।

উল্লেখ্য, এর আগে খরচের দিক থেকে সবচেয়ে ব্যয়বহুল আসর ছিলো ব্রাজিল বিশ্বকাপ। ২০১৪ সালের এই আসরের জন্য ব্রাজিল খরচ করে প্রায় ১৫ বিলিয়ন ডলার।

রাজবাড়ীর পাংশায় প্রান্তিক জনকল্যাণ সংস্থা কতৃক আয়োজিত ঈদ পূর্ণমিলন

কাতার বিশ্বকাপের খরচ শুনলে চমকে যাবেন

কাতার বিশ্বকাপের খরচ শুনলে চমকে যাবেন

আপডেট সময় ০৮:৫৮:০৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩ অক্টোবর ২০২২

যতই দিন গড়াচ্ছে দরজায় কড়া নাড়ছে যেন ফুটবল বিশ্বকাপ। প্রথমবারের মতো এবারের আসরের আয়োজক দেশ মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে ধনী রাষ্ট্র কাতার। আর তাই নতুন সব স্টেডিয়ামের সঙ্গে জাকজমকপূর্ণ সব আয়োজনে বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যয় করছে মরুভূমির উত্তপ্ত এই দেশটি। কাতার বলেছে, এবারের ফিফা বিশ্বকাপে তারা ২২০ বিলিয়ন ডলার খরচ করছে। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২২ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা। আর যা কিনা বিশ্বকাপ ইতিহাসের সবচেয়ে ব্যয়বহুল আয়োজন হতে চলছে। ২০১৮ সালে রাশিয়া যে পরিমাণ খরচ করেছে, কাতার বিশ্বকাপে তার ২০ গুণ বেশি ব্যয় হচ্ছে। শুধু তাই নয়, ১৯৯৪ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ৭ টি বিশ্বকাপের একত্রিত খরচকেও হার মানিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে আয়োজক দেশ কাতার।

অন্যদিকে রেকর্ড পরিমাণ এই ব্যয়ের পেছনে রয়েছে নানাবিধ কারণ। প্রথমত, বিশ্বকাপের জন্য অত্যাধুনিক নতুন ৮টি স্টেডিয়াম তৈরি করেছে কাতার, সেইসাথে তৈরি করা হয়েছে অনুশিলনের মাঠও। এছাড়া ফুটবলার ও দর্শকদের নানা সুবিধা দিতে বিভিন্ন হোটেল ও পার্ক বিনোদন কেন্দ্র সহ অনেক কিছুই নির্মাণ করেছে দেশটি।

প্রথমবারের মতো মধ্যপ্রাচ্যে বিশ্বকাপের আসর বসতে চলছে। নানান দেশ থেকে নানা দর্শক দেখতে আসবেন এই মহাযজ্ঞ আয়োজন, তাদের জন্য কাতার তৈরি করেছে উন্নতমানের হোটেল। এছাড়া তাদের স্টেডিয়ামে ফ্রি যাতায়াতের জন্য পরিবহন খাতেও প্রচুর অর্থ ব্যয় হয়েছে। বিনামূল্যে নামানো হয়েছে চার হাজার বাস।

উল্লেখ্য, এর আগে খরচের দিক থেকে সবচেয়ে ব্যয়বহুল আসর ছিলো ব্রাজিল বিশ্বকাপ। ২০১৪ সালের এই আসরের জন্য ব্রাজিল খরচ করে প্রায় ১৫ বিলিয়ন ডলার।