ঢাকা ০৯:৪২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুনের ঘটনায় রাজবাড়ীর ৩ যাত্রী এখনো নিখোঁজ

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৬:৫৫:০৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জানুয়ারী ২০২৪
  • ১৯ বার পড়া হয়েছে

রাজবাড়ী প্রতিনিধি : ঢাকার গোপীবাগে বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুনের ঘটনায় রাজবাড়ী জেলার ৩ যাত্রীর নিখোঁজের খবর পাওয়া গেছে। ধারণা করা হচ্ছে নিখোঁজ ৩ জনই আগুনে পুড়ে মারা গেছে।

শুক্রবার রাজবাড়ী রেলস্টেশন হতে ঢাকার উদ্দেশ্যে ট্রেনটিতে যাত্রা করেছিলেন তারা ।

এরা হলেন, রাজবাড়ী শহরের লক্ষীকোল গ্রামের এলিনা ইয়াসমিন (৪০), রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানগঞ্জ ইউনিয়নের রঘুনাথপুর গ্রামের চিত্তরঞ্জন প্রামানিকের মেয়ে চন্দ্রিমা চৌধুরী সৌমি (২৪) ও একই জেলার কালুখালী উপজেলার মৃগী ইউনিয়নের বড়ইচারা গ্রামের আবদুল হক মন্ডলের ছেলে আবু তালহা (২৪)।

এলিনার ভাসুর মুরাদ হোসেন বলেন, এলিনা তার ছোট ভাই সাজ্জাদের স্ত্রী। ১০ দিন আগে এলিনার বাবা মারা যাওয়ায় সে ঢাকা থেকে রাজবাড়ীতে এসে ছিলেন। এলিনা শুক্রবার সন্ধ্যায় বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে ঢাকায় ফিরছিলেন। তার পাঁচ মাসের সন্তানকে পাওয়া গেছে। কিন্তু এলিনা এখনও নিখোঁজ রয়েছেন।

চন্দ্রিমার ভাই শোভন প্রামানিক বলেন, আমার ছোট বোন একটি বেসরকারি বিদ্যালয় থেকে ফার্মাসিস্ট বিভাগে পড়ালেখা করেছে। সে ঢাকার মোহাম্মদপুরে আমাদের সঙ্গে থাকে। কয়েকদিন আগে সে বাড়িতে গিয়েছিল। শুক্রবার বেনাপোল এক্সপ্রেসের ‘চ’ নম্বর বগিতে রওনা দেয়। দুর্ঘটনার পর থেকে চন্দ্রিমা নিখোঁজ রয়েছে। আমরা ঢাকার অনেকগুলো হাসপাতাল ও ক্লিনিকে খোঁজ নিয়েছি। আমরা তাকে কোথায়ও খুঁজে পাচ্ছি না।

আশিক হাসান সিমান্ত বলেন, আমার দুই চাচাতো ভাই আবু তালহা ও আবু তাসলাম ঢাকায় যাচ্ছিলেন। দুর্ঘটনার পর আবু তাসলাম ট্রেন থেকে নেমে যেতে পেরেছে। কিন্তু আবু তালহা নামতে পারে নাই। তাকে কোথায়ও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

রাজবাড়ীর স্টেশন মাস্টার আব্দুর রহমান বলেন, যশোর থেকে ছেড়ে আসা বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনটি শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা ৩৩ মিনিটে রাজবাড়ী রেলস্টেশন থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। রাজবাড়ী থেকে ৬৫ জনের মতো যাত্রী এই ট্রেনে গিয়েছিল।

জনপ্রিয় সংবাদ

দাঁড়ি বড় রাখায় যুবককে পেটালেন ইউপি চেয়ারম্যান ও তার ছেলে!

বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুনের ঘটনায় রাজবাড়ীর ৩ যাত্রী এখনো নিখোঁজ

আপডেট সময় ০৬:৫৫:০৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জানুয়ারী ২০২৪

রাজবাড়ী প্রতিনিধি : ঢাকার গোপীবাগে বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুনের ঘটনায় রাজবাড়ী জেলার ৩ যাত্রীর নিখোঁজের খবর পাওয়া গেছে। ধারণা করা হচ্ছে নিখোঁজ ৩ জনই আগুনে পুড়ে মারা গেছে।

শুক্রবার রাজবাড়ী রেলস্টেশন হতে ঢাকার উদ্দেশ্যে ট্রেনটিতে যাত্রা করেছিলেন তারা ।

এরা হলেন, রাজবাড়ী শহরের লক্ষীকোল গ্রামের এলিনা ইয়াসমিন (৪০), রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানগঞ্জ ইউনিয়নের রঘুনাথপুর গ্রামের চিত্তরঞ্জন প্রামানিকের মেয়ে চন্দ্রিমা চৌধুরী সৌমি (২৪) ও একই জেলার কালুখালী উপজেলার মৃগী ইউনিয়নের বড়ইচারা গ্রামের আবদুল হক মন্ডলের ছেলে আবু তালহা (২৪)।

এলিনার ভাসুর মুরাদ হোসেন বলেন, এলিনা তার ছোট ভাই সাজ্জাদের স্ত্রী। ১০ দিন আগে এলিনার বাবা মারা যাওয়ায় সে ঢাকা থেকে রাজবাড়ীতে এসে ছিলেন। এলিনা শুক্রবার সন্ধ্যায় বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে ঢাকায় ফিরছিলেন। তার পাঁচ মাসের সন্তানকে পাওয়া গেছে। কিন্তু এলিনা এখনও নিখোঁজ রয়েছেন।

চন্দ্রিমার ভাই শোভন প্রামানিক বলেন, আমার ছোট বোন একটি বেসরকারি বিদ্যালয় থেকে ফার্মাসিস্ট বিভাগে পড়ালেখা করেছে। সে ঢাকার মোহাম্মদপুরে আমাদের সঙ্গে থাকে। কয়েকদিন আগে সে বাড়িতে গিয়েছিল। শুক্রবার বেনাপোল এক্সপ্রেসের ‘চ’ নম্বর বগিতে রওনা দেয়। দুর্ঘটনার পর থেকে চন্দ্রিমা নিখোঁজ রয়েছে। আমরা ঢাকার অনেকগুলো হাসপাতাল ও ক্লিনিকে খোঁজ নিয়েছি। আমরা তাকে কোথায়ও খুঁজে পাচ্ছি না।

আশিক হাসান সিমান্ত বলেন, আমার দুই চাচাতো ভাই আবু তালহা ও আবু তাসলাম ঢাকায় যাচ্ছিলেন। দুর্ঘটনার পর আবু তাসলাম ট্রেন থেকে নেমে যেতে পেরেছে। কিন্তু আবু তালহা নামতে পারে নাই। তাকে কোথায়ও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

রাজবাড়ীর স্টেশন মাস্টার আব্দুর রহমান বলেন, যশোর থেকে ছেড়ে আসা বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনটি শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা ৩৩ মিনিটে রাজবাড়ী রেলস্টেশন থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। রাজবাড়ী থেকে ৬৫ জনের মতো যাত্রী এই ট্রেনে গিয়েছিল।