ঢাকা ১১:১৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ীতে বিএনপির দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ১৫

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৫:৪৬:২৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুলাই ২০২৩
  • ৪৯ বার পড়া হয়েছে

সোহাগুর রহমান,রাজবাড়ী

রাজবাড়ীতে বিএনপির পদযাত্রাকে কেন্দ্র করে বিএনপির দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার (১৮ জুলাই) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজবাড়ী পৌর শহরের আজাদী ময়দান এলাকায় এ  ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের অন্তত ১০-১৫ জন আহত হয়েছে।

জানা গেছে, সরকারের পদত্যাগসহ নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের দাবিতে বিএনপিসহ সমমনা রাজনৈতিক দলগুলোর পদযাত্রা কর্মসূচি শুরু হয়েছে। পদযাত্রা উপলক্ষ্যে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে জেলার সাবেক সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদের নেতৃত্বে কয়েকশ নেতাকর্মী জড়ো হয়। অপরদিকে রাজবাড়ী-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়মের নেতৃত্বে তার নিজ বাসভবন সজ্জনকান্দায় জড়ো হয় আরও কয়েক’শ নেতাকর্মী।

এর কিছুক্ষণ পরেই পুনরায় আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়মের নেতৃত্বে একটি বিশাল মিছিল বিএনপি কার্যালয়ে প্রবেশ করতে গেলে হারুন অর রশিদের নেতাকর্মীরা বাধা দেয়। পরবর্তীতে খৈয়ম গ্রুপের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে পার্টি অফিসে প্রবেশ করলে দুইপক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। সে সময় জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক খৈয়ম গ্রুপের আফছার আলী সরদার, যুবদল নেতা কাউন্সিলর সম্রাটসহ ১০-১৫ জন আহত হয়। এ ছাড়া এ সময় ১০-১৫টি মোটরসাইকেল ও বিএনপি কার্যালয়ের আসবারপত্র ভাঙচুর করে দুই গ্রুপের নেতাকর্মীরা। পরে আহতদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. হারুন-উর রশিদ বলেন, খৈয়ম গ্রুপের সন্ত্রাসী ও লাঠিয়াল বাহিনী এসে আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করে। এতে আমাদের সদর উপজেলার বিএনপি নেতা আবুল হোসেন গাজীসহ ১০-১২ জন নেতাকর্মী আহত হয়।’

রাজবাড়ীর-১ আসনের সাবেক এমপি ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়ম বলেন, ‘রাজবাড়ীতে দীর্ঘদিন ধরেই আওয়ামী লীগ সরকারের একটি এজেন্ট হিসেবে কাজ করছে বিএনপির একাংশ। আজকে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে পদযাত্রায় অংশ নিতে পার্টি অফিসের নেতাকর্মীদের নিয়ে মিছিল নিয়ে যাচ্ছিলাম। কিন্তু তারা আমাদের পার্টি অফিসে ঢুকতে দেয়নি। তাদের সন্ত্রাসী ও লাঠিয়াল বাহিনী দিয়ে আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করেছে। এতে জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আফসার আলী সরদার, যুবদল নেতা সম্রাটসহ আমাদের ১০-১২ জন আহত হয়।

জনপ্রিয় সংবাদ

ফরিদপুর- ২ আসনের জনগণের শান্তি নিশ্চিত করা আমার লক্ষ্য: এমপি লাবু চৌধুরী

রাজবাড়ীতে বিএনপির দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ১৫

আপডেট সময় ০৫:৪৬:২৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুলাই ২০২৩

সোহাগুর রহমান,রাজবাড়ী

রাজবাড়ীতে বিএনপির পদযাত্রাকে কেন্দ্র করে বিএনপির দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার (১৮ জুলাই) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজবাড়ী পৌর শহরের আজাদী ময়দান এলাকায় এ  ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের অন্তত ১০-১৫ জন আহত হয়েছে।

জানা গেছে, সরকারের পদত্যাগসহ নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের দাবিতে বিএনপিসহ সমমনা রাজনৈতিক দলগুলোর পদযাত্রা কর্মসূচি শুরু হয়েছে। পদযাত্রা উপলক্ষ্যে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে জেলার সাবেক সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদের নেতৃত্বে কয়েকশ নেতাকর্মী জড়ো হয়। অপরদিকে রাজবাড়ী-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়মের নেতৃত্বে তার নিজ বাসভবন সজ্জনকান্দায় জড়ো হয় আরও কয়েক’শ নেতাকর্মী।

এর কিছুক্ষণ পরেই পুনরায় আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়মের নেতৃত্বে একটি বিশাল মিছিল বিএনপি কার্যালয়ে প্রবেশ করতে গেলে হারুন অর রশিদের নেতাকর্মীরা বাধা দেয়। পরবর্তীতে খৈয়ম গ্রুপের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে পার্টি অফিসে প্রবেশ করলে দুইপক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। সে সময় জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক খৈয়ম গ্রুপের আফছার আলী সরদার, যুবদল নেতা কাউন্সিলর সম্রাটসহ ১০-১৫ জন আহত হয়। এ ছাড়া এ সময় ১০-১৫টি মোটরসাইকেল ও বিএনপি কার্যালয়ের আসবারপত্র ভাঙচুর করে দুই গ্রুপের নেতাকর্মীরা। পরে আহতদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. হারুন-উর রশিদ বলেন, খৈয়ম গ্রুপের সন্ত্রাসী ও লাঠিয়াল বাহিনী এসে আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করে। এতে আমাদের সদর উপজেলার বিএনপি নেতা আবুল হোসেন গাজীসহ ১০-১২ জন নেতাকর্মী আহত হয়।’

রাজবাড়ীর-১ আসনের সাবেক এমপি ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়ম বলেন, ‘রাজবাড়ীতে দীর্ঘদিন ধরেই আওয়ামী লীগ সরকারের একটি এজেন্ট হিসেবে কাজ করছে বিএনপির একাংশ। আজকে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে পদযাত্রায় অংশ নিতে পার্টি অফিসের নেতাকর্মীদের নিয়ে মিছিল নিয়ে যাচ্ছিলাম। কিন্তু তারা আমাদের পার্টি অফিসে ঢুকতে দেয়নি। তাদের সন্ত্রাসী ও লাঠিয়াল বাহিনী দিয়ে আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করেছে। এতে জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আফসার আলী সরদার, যুবদল নেতা সম্রাটসহ আমাদের ১০-১২ জন আহত হয়।