ঢাকা ১১:২৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ঝালকাঠির কাঠালিয়ায় নিখোঁজের ১৪ দিন পরেও খোঁজ মেলেনি প্রবাসীর স্ত্রী-সন্তানের

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৬:১৮:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ জুন ২০২৩
  • ৬৬ বার পড়া হয়েছে

ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ ঝালকাঠির কাঠালিয়া উপজেলার ছোনাউটা গ্রামের কুয়েত প্রবাসী সাইদুল ইসলাম ওরফে মঞ্জু এর স্ত্রী কুমকুম বেগম (২৮) ও কন্যা মারিয়া জান্নাত (০৬) নিখোঁজ হওয়ার ১৪ দিন পরেও খোঁজ মেলেনি।

এ ব্যাপারে কাঠালিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করলেও পুলিশ এখন পর্যন্ত তাদের উদ্ধার বা খোঁজ দিতে পারেনি। আজ ০৭ জুন সাংবাদিকদের কাছে প্রবাসী মঞ্জুর মা ফাতিমা বেগম এ অভিযোগ করেন।
গত ২৫ মে ২০২৩ইং তারিখ বৃহস্পতিবার সকাল ৬ টায় উপজেলার আমুয়া বন্দর থেকে তারা নিখোঁজ হন।
শাশুরী ফাতিমা বেগম জানান, ২৫ মে বৃহস্পতিবার সকালে কুমকুম বেগম তার মেয়েকে আমুয়া লঞ্চঘাট আলহাজ¦ আব্দুল মজিদ খান নূরানী তালিমুল কুরআন হাফিজি মাদ্রাসার প্লে শ্রেণির অর্ধবার্ষিক পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করার জন্য নিয়ে যান। তারা পরীক্ষা শেষে বাসায় না ফেরায় মাদ্রাসা ও মঞ্জুর শশুর বাড়ীতে খোঁজাখুজি করে তাদের পাওয়া যায়নি। কুমকুম তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন ও সিম তার পিতার বাড়ীতে রেখে যান। সে প্রায়ই তার পিতার বাড়ীতে রাত্রি যাপন করত। এ ব্যাপারে গত ২৭ মে ২০২৩ তারিখ কাঠালিয়া থানায় একটি সাধারন ডাইরী করা হয়েছে।

এইচ এম নাসির উদ্দিন
ঝালকাঠি প্রতিনিধি
০১৭১৩৯৬৩৬৭৫

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

ফরিদপুর- ২ আসনের জনগণের শান্তি নিশ্চিত করা আমার লক্ষ্য: এমপি লাবু চৌধুরী

ঝালকাঠির কাঠালিয়ায় নিখোঁজের ১৪ দিন পরেও খোঁজ মেলেনি প্রবাসীর স্ত্রী-সন্তানের

আপডেট সময় ০৬:১৮:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ জুন ২০২৩

ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ ঝালকাঠির কাঠালিয়া উপজেলার ছোনাউটা গ্রামের কুয়েত প্রবাসী সাইদুল ইসলাম ওরফে মঞ্জু এর স্ত্রী কুমকুম বেগম (২৮) ও কন্যা মারিয়া জান্নাত (০৬) নিখোঁজ হওয়ার ১৪ দিন পরেও খোঁজ মেলেনি।

এ ব্যাপারে কাঠালিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করলেও পুলিশ এখন পর্যন্ত তাদের উদ্ধার বা খোঁজ দিতে পারেনি। আজ ০৭ জুন সাংবাদিকদের কাছে প্রবাসী মঞ্জুর মা ফাতিমা বেগম এ অভিযোগ করেন।
গত ২৫ মে ২০২৩ইং তারিখ বৃহস্পতিবার সকাল ৬ টায় উপজেলার আমুয়া বন্দর থেকে তারা নিখোঁজ হন।
শাশুরী ফাতিমা বেগম জানান, ২৫ মে বৃহস্পতিবার সকালে কুমকুম বেগম তার মেয়েকে আমুয়া লঞ্চঘাট আলহাজ¦ আব্দুল মজিদ খান নূরানী তালিমুল কুরআন হাফিজি মাদ্রাসার প্লে শ্রেণির অর্ধবার্ষিক পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করার জন্য নিয়ে যান। তারা পরীক্ষা শেষে বাসায় না ফেরায় মাদ্রাসা ও মঞ্জুর শশুর বাড়ীতে খোঁজাখুজি করে তাদের পাওয়া যায়নি। কুমকুম তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন ও সিম তার পিতার বাড়ীতে রেখে যান। সে প্রায়ই তার পিতার বাড়ীতে রাত্রি যাপন করত। এ ব্যাপারে গত ২৭ মে ২০২৩ তারিখ কাঠালিয়া থানায় একটি সাধারন ডাইরী করা হয়েছে।

এইচ এম নাসির উদ্দিন
ঝালকাঠি প্রতিনিধি
০১৭১৩৯৬৩৬৭৫