ঢাকা ১২:৩৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পাংশার কশবামাজাইলে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ৩য় বর্ষপূর্তি উদযাপন 

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৯:৩৭:২৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ মে ২০২৩
  • ৬৩ বার পড়া হয়েছে

পাংশা কশবামাজাইল আতাহার হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের সংগঠন The Platform of Ex-Students of Kashbamajail A.H.High School শতাধিক শিক্ষক এবং ছাত্র-ছাত্রীর উপস্থিতিতে কেক কেটে তাদের প্লাটফর্মের তিন বছর পূর্তি উদযাপন করে। ব্যবস্থাপনায় ছিলেন প্লাটফর্মের এডমিন প্যানেল। অনুষ্ঠানে শিক্ষকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শামিমা সুলতানা, এডমিন প্যানেলের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন আশরাফুল আউয়াল এবং প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে থেকে ছিলেন নজরুল ইসলাম আযম, আবু হান্নান, মামুন অর রশিদ, আশিকুর রহমান হৃদয়, রইস উদ্দিন,  তাসকিন হাসান বর্ষনসহ আরও অনেকে।

গত বছর মে মাসে প্রায় ১৫০০ প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে দুই দিন ব্যাপি পুনর্মিলনীর আয়োজন করা হয় যা রাজবাড়ী জেলার মধ্যে স্কুল পর্যায়ে সর্ববৃহৎ পুনর্মিলনী। আবার ২৪ ডিসেম্বর ২০২২ তারিখে বার্ষিক বনভোজন আয়োজন করা হয় সাভার সেনানিবাসের বনরুপায়। এতে জুনিয়র সিনিয়র ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে অপার মেলবন্ধন তৈরি করে।

এছাড়া অনেকের জটিল ও দুরারোগ্য রোগের চিকিৎসায় সহযোগিতার হাত বাড়াতে চেষ্টা করেছে এই প্লাটফর্ম।

অন্যদিকে লুৎফর রহমান মেমোরিয়াল শিক্ষাবৃত্তির মাধ্যমে ৩০ জন এবং “দি প্লাটফর্ম অব এক্স-স্টুডেন্টস অব কশবামাজাইল এ. এইচ. হাই স্কুল শিক্ষাবৃত্তির মাধ্যমে ২৮ জন ছাত্র-ছাত্রীদের বৃত্তি প্রদান করা হয়।

অর্থনৈতিক সহযোগিতা বাদেও এলাকার অনেক মানুষের সুচিকিৎসার জন্য  হাসপাতালে ভর্তি, ডাক্তারদের সাথে যোগাযোগ, ব্লাড ডোনার সংগ্রহ করা ইত্যাদি বিভিন্ন ধরনের কাজ শুরু থেকেই আমরা করে আসছি। এ পর্যন্ত প্রায় ২০ জন অসুস্থ রোগীর জন্য ব্লাড ডোনার সংগ্রহ করার ক্ষেত্রে আমাদের তৈরি ডাটাবেইজ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে।

অনেকের কর্মসংস্থানের জন্য সহযোগিতা করছে।
প্লাটফর্মের মাধ্যমে অনেকেই জানতে পারছে এই স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীরা কে কোথায় আছে, এলাকার বেকার ছেলে মেয়েদের চাকরি পেতে সহায়তা করছে সিনিয়ররা।

এছাড়াও সুদূর আমেরিকা থেকে মাঝে মাঝে ডাক্তার আইয়ুব হোসেন লাইভে এসে অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্য রাখেন যা সবাইকে উজ্জীবিত করে এবং এক সাথে পথ চলতে প্রেরণা যোগায়। অনেকে নতুন করে লেখায় ফিরেছেন। তাঁদের লেখার সৃষ্টিশীলতা সবাইকে মুগ্ধ করেছে। প্লাটফর্মে  অনেক গল্প ও কবিতা পোস্ট হয়েছে যেগুলো সাহিত্য মানে অনন্য।

প্রাণপ্রিয় স্কুলের প্রতিষ্ঠা ও উন্নতিতে যাঁদের অসামান্য অবদান রয়েছে তাঁদের অবদান ও সংক্ষিপ্ত  জীবনী প্লাটফর্মে তুলে ধরা হয়েছে।

এই প্লাটফর্ম আমাদের প্রাণপ্রিয় স্কুলকেন্দিক হলেও তা কসবামাজাইল ও তার আশেপাশের শিক্ষিত, সচেতন, সমাজসেবী ও সর্বোপরি আপামর জনগোষ্ঠীর মাঝে ভ্রাতৃবন্ধন সুদৃঢ় করতে অপরিসীম ভূমিকা রাখছে বলে আমরা জোরালোভাবে বিশ্বাস করি। এর মাধ্যমে আমরা আমাদের এলাকার লোকজ, শিল্প, সাহিত্য, সংস্কৃতি, ঐতিহ্য আরও বেশি করে জানতে পারছি। আবার অনেকের শৈশবের কিংবা শিক্ষাজীবনের মজার মজার ঘটনা জেনে আনন্দ পাচ্ছি। অনেক গল্প ও কবিতা পোস্ট হচ্ছে যেগুলো সাহিত্য মানেও অনন্য। এতে জ্ঞানের আলোর প্রস্ফুটন ঘটছে যেটা এই প্লাটফর্ম গঠনের অন্যতম প্রধান লক্ষ্য ।

উল্লেখ্য ২০২০ সালের ১১ মে ৮৪ ব্যাচের কৃতি ছাত্র ডা: এম এ রশিদ কয়েকজন মেধাবী প্রাক্তন ছাত্রকে এডমিন হিসেবে নিয়ে ফেসবুক ভিত্তিক এই প্লাটফর্মটি তৈরি করেন। প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের কল্যাণে ও সামাজিক উন্নয়নে এই প্লাটফর্ম ইতোমধ্যে কশবামাজাইল এলাকায় ব্যাপক অবদান রাখছে।

জনপ্রিয় সংবাদ

দাঁড়ি বড় রাখায় যুবককে পেটালেন ইউপি চেয়ারম্যান ও তার ছেলে!

পাংশার কশবামাজাইলে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ৩য় বর্ষপূর্তি উদযাপন 

আপডেট সময় ০৯:৩৭:২৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ মে ২০২৩

পাংশা কশবামাজাইল আতাহার হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের সংগঠন The Platform of Ex-Students of Kashbamajail A.H.High School শতাধিক শিক্ষক এবং ছাত্র-ছাত্রীর উপস্থিতিতে কেক কেটে তাদের প্লাটফর্মের তিন বছর পূর্তি উদযাপন করে। ব্যবস্থাপনায় ছিলেন প্লাটফর্মের এডমিন প্যানেল। অনুষ্ঠানে শিক্ষকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শামিমা সুলতানা, এডমিন প্যানেলের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন আশরাফুল আউয়াল এবং প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে থেকে ছিলেন নজরুল ইসলাম আযম, আবু হান্নান, মামুন অর রশিদ, আশিকুর রহমান হৃদয়, রইস উদ্দিন,  তাসকিন হাসান বর্ষনসহ আরও অনেকে।

গত বছর মে মাসে প্রায় ১৫০০ প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে দুই দিন ব্যাপি পুনর্মিলনীর আয়োজন করা হয় যা রাজবাড়ী জেলার মধ্যে স্কুল পর্যায়ে সর্ববৃহৎ পুনর্মিলনী। আবার ২৪ ডিসেম্বর ২০২২ তারিখে বার্ষিক বনভোজন আয়োজন করা হয় সাভার সেনানিবাসের বনরুপায়। এতে জুনিয়র সিনিয়র ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে অপার মেলবন্ধন তৈরি করে।

এছাড়া অনেকের জটিল ও দুরারোগ্য রোগের চিকিৎসায় সহযোগিতার হাত বাড়াতে চেষ্টা করেছে এই প্লাটফর্ম।

অন্যদিকে লুৎফর রহমান মেমোরিয়াল শিক্ষাবৃত্তির মাধ্যমে ৩০ জন এবং “দি প্লাটফর্ম অব এক্স-স্টুডেন্টস অব কশবামাজাইল এ. এইচ. হাই স্কুল শিক্ষাবৃত্তির মাধ্যমে ২৮ জন ছাত্র-ছাত্রীদের বৃত্তি প্রদান করা হয়।

অর্থনৈতিক সহযোগিতা বাদেও এলাকার অনেক মানুষের সুচিকিৎসার জন্য  হাসপাতালে ভর্তি, ডাক্তারদের সাথে যোগাযোগ, ব্লাড ডোনার সংগ্রহ করা ইত্যাদি বিভিন্ন ধরনের কাজ শুরু থেকেই আমরা করে আসছি। এ পর্যন্ত প্রায় ২০ জন অসুস্থ রোগীর জন্য ব্লাড ডোনার সংগ্রহ করার ক্ষেত্রে আমাদের তৈরি ডাটাবেইজ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে।

অনেকের কর্মসংস্থানের জন্য সহযোগিতা করছে।
প্লাটফর্মের মাধ্যমে অনেকেই জানতে পারছে এই স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীরা কে কোথায় আছে, এলাকার বেকার ছেলে মেয়েদের চাকরি পেতে সহায়তা করছে সিনিয়ররা।

এছাড়াও সুদূর আমেরিকা থেকে মাঝে মাঝে ডাক্তার আইয়ুব হোসেন লাইভে এসে অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্য রাখেন যা সবাইকে উজ্জীবিত করে এবং এক সাথে পথ চলতে প্রেরণা যোগায়। অনেকে নতুন করে লেখায় ফিরেছেন। তাঁদের লেখার সৃষ্টিশীলতা সবাইকে মুগ্ধ করেছে। প্লাটফর্মে  অনেক গল্প ও কবিতা পোস্ট হয়েছে যেগুলো সাহিত্য মানে অনন্য।

প্রাণপ্রিয় স্কুলের প্রতিষ্ঠা ও উন্নতিতে যাঁদের অসামান্য অবদান রয়েছে তাঁদের অবদান ও সংক্ষিপ্ত  জীবনী প্লাটফর্মে তুলে ধরা হয়েছে।

এই প্লাটফর্ম আমাদের প্রাণপ্রিয় স্কুলকেন্দিক হলেও তা কসবামাজাইল ও তার আশেপাশের শিক্ষিত, সচেতন, সমাজসেবী ও সর্বোপরি আপামর জনগোষ্ঠীর মাঝে ভ্রাতৃবন্ধন সুদৃঢ় করতে অপরিসীম ভূমিকা রাখছে বলে আমরা জোরালোভাবে বিশ্বাস করি। এর মাধ্যমে আমরা আমাদের এলাকার লোকজ, শিল্প, সাহিত্য, সংস্কৃতি, ঐতিহ্য আরও বেশি করে জানতে পারছি। আবার অনেকের শৈশবের কিংবা শিক্ষাজীবনের মজার মজার ঘটনা জেনে আনন্দ পাচ্ছি। অনেক গল্প ও কবিতা পোস্ট হচ্ছে যেগুলো সাহিত্য মানেও অনন্য। এতে জ্ঞানের আলোর প্রস্ফুটন ঘটছে যেটা এই প্লাটফর্ম গঠনের অন্যতম প্রধান লক্ষ্য ।

উল্লেখ্য ২০২০ সালের ১১ মে ৮৪ ব্যাচের কৃতি ছাত্র ডা: এম এ রশিদ কয়েকজন মেধাবী প্রাক্তন ছাত্রকে এডমিন হিসেবে নিয়ে ফেসবুক ভিত্তিক এই প্লাটফর্মটি তৈরি করেন। প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের কল্যাণে ও সামাজিক উন্নয়নে এই প্লাটফর্ম ইতোমধ্যে কশবামাজাইল এলাকায় ব্যাপক অবদান রাখছে।