ঢাকা ১০:৩৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

জাতিসংঘের সদস্য নিযুক্ত হলেন প্রফেসর ড. ইউনূস

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০১:১৭:৪৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ এপ্রিল ২০২৩
  • ২১৪ বার পড়া হয়েছে

জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুটেরেস নোবেল বিজয়ী প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূসকে জাতি সংঘের “অ্যাডভাইজরী বোর্ড অব এমিনেন্ট পার্সন্স অন জিরো ওয়েস্ট” -এর সদস্য হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন। “জিরো ওয়েস্ট” বা শূন্য অপচয় বিষয়ক জাতি সংঘ সাধারণ পরিষদের ২২ ডিসেম্বর ২০২২ -এর রেজল্যুশন মোতাবেক প্রফেসর ইউনূসকে এই মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

এই উপলক্ষ্যে প্রফেসর ইউনূসকে লেখা চিঠিতে জাতি সংঘ মহাসচিব বলেন, “আমি বিশ্বাস করি যে, আপনার জ্ঞান, অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা জাতি সংঘের শূন্য-অপচয় বিষয়ক কর্মকান্ডকে ত্বরান্বিত করতে বিশেষ ভূমিকা রাখবে।” তিনি আরো বলেন, “টেকসই উন্নয়নের প্রেক্ষাপটে শূন্য-অপচয় বিষয়ক কর্মকান্ডকে এগিয়ে নিয়ে যেতে এই অ্যাডভাইজরী বোর্ড একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে আমি আশা করি।” অপচয় হ্রাস, সামগ্রী ব্যবহার ও উৎপাদন নকসা পুনঃপ্রণয়ন, সার্কুলার অর্থনীতি গড়ে তোলা ও ভোক্তাদের পছন্দের ক্ষেত্রে টেকসই সমাধান হিসেবে শূন্য-অপচয়ের ধারণা বিশ্ব ব্যাপী ক্রমাগত জনপ্রিয় হচ্ছে। এই প্রেক্ষিতে জাতি সংঘ মহাসচিব আশা প্রকাশ করেন যে, অঞ্চল ও নারী-পুরুষ ভারসাম্য নিশ্চিতকারি অংশীদারগণকে নিয়ে বিভিন্ন বিষয়ের ভিত্তিতে জাতি সংঘ কতৃক গঠিত এই বোর্ড এই ক্ষেত্রে বিভিন্ন দেশের সর্বোত্তম বিভিন্ন উদ্যোগ, সফল কাহিনী, ও অভিজ্ঞাগুলি তুলে ধরতে এবং স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ে সচেতনতা বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারবে।

জাতি সংঘের এই অ্যাডভাইজরী বোর্ডে ১৩ জন বিশ্বখ্যাত সদস্য রয়েছেন। এঁদের মধ্যে রয়েছেন তুরস্কের ফার্স্ট লেডী মিসেস এমিনে এরদোয়ান যিনি এই বোর্ডের সভাপতি নিযুক্ত হয়েছেন। । অন্যান্য সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন জাতি সংঘ মহাসচিবের পলিসি এক্সিকিউটিভ অফিসের দায়িত্বপ্রাপ্ত আন্ডার-সেক্রেটারী-জেনারেল মি. গাই রাইডার,
আলগ্রামো-র প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী মি. জোসে ম্যানুয়েল মোয়েলার, ইউনূস ইনভায়ার্ণমেন্ট হাব-এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস, ইন্টারন্যাশনাল সলিড ওয়েস্ট অ্যাসোসিয়েশন-এর প্রেসিডেন্ট মি. কার্লোস সিলভা ফিলহো, ইকোনমিয়া সার্কুলার-এর নির্বাহী পরিচালক মিস লরা রেয়েস, দ্য ওয়েস্ট ট্রান্সফরমার্স-এর প্রধান নির্বাহী মিস লারা ভ্যান ড্রুটেন, এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দেলাওয়ারে বিশ্ববিদ্যালয়ের এনার্জি এন্ড দ্য ইনভায়ার্ণমেন্ট বিষয়ের প্রফেসর সালীম আলী।

অ্যাডভাইজরী বোর্ডের আহ্বায়ক হিসেবে জাতি সংঘ মহাসচিব ইউএন-হাবিট্যাট (জাতি সংঘ হিউম্যান সেটলমেন্ট প্রোগ্রাম) ও জাতি সংঘ পরিবেশ কর্মসূচি-র সহায়তায় বোর্ড সদস্যদের নিয়ে জাতি সংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য ২০৩০ সফলভাবে অর্জনের প্রত্যাশা করছেন। এ বছরের সেপ্টেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে জাতি সংঘ মহাসচিবের অংশগ্রহণে বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হবে।

অ্যাডভাইজরী বোর্ড মানুষের মধ্যে এ বিষয়ক সচেতনতা বৃদ্ধি ও প্রাসঙ্গিক তথ্যসমূহ মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে নিয়মিতভাবে বিভিন্ন প্রতিবেদন, সোশ্যাল মিডিয়া, ও ওয়েবসাইট আর্টিকেলসহ বিভিন্ন উপায়ে এই ক্ষেত্রে সর্বোত্তম উদ্যোগ এবং সফল কাহিনী ও অভিজ্ঞাগুলি তুলে ধরবেন এবং বিভিন্ন দেশে স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন শূন্য-অপচয় উদ্যোগ ও কারিগরী সমীক্ষার পক্ষে প্রচারণা চালাবেন। বিশেষ করে প্রতি বছর ৩০ মার্চকে “আন্তর্জাতিক শূন্য-অপচয় দিবস” হিসেবে বৈশ্বিকভাবে পালন করা হবে।

গত ৩০ মার্চ ২০২৩ প্রথম আন্তর্জাতিক শূন্য-অপচয় দিবসে জাতি সংঘ মহাসচিব “অ্যাডভাইজরী বোর্ড অব এমিনেন্ট পার্সন্স অন জিরো ওয়েস্ট” গঠনের ঘোষণা দেন।

জনপ্রিয় সংবাদ

দাঁড়ি বড় রাখায় যুবককে পেটালেন ইউপি চেয়ারম্যান ও তার ছেলে!

জাতিসংঘের সদস্য নিযুক্ত হলেন প্রফেসর ড. ইউনূস

আপডেট সময় ০১:১৭:৪৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ এপ্রিল ২০২৩

জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুটেরেস নোবেল বিজয়ী প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূসকে জাতি সংঘের “অ্যাডভাইজরী বোর্ড অব এমিনেন্ট পার্সন্স অন জিরো ওয়েস্ট” -এর সদস্য হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন। “জিরো ওয়েস্ট” বা শূন্য অপচয় বিষয়ক জাতি সংঘ সাধারণ পরিষদের ২২ ডিসেম্বর ২০২২ -এর রেজল্যুশন মোতাবেক প্রফেসর ইউনূসকে এই মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

এই উপলক্ষ্যে প্রফেসর ইউনূসকে লেখা চিঠিতে জাতি সংঘ মহাসচিব বলেন, “আমি বিশ্বাস করি যে, আপনার জ্ঞান, অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা জাতি সংঘের শূন্য-অপচয় বিষয়ক কর্মকান্ডকে ত্বরান্বিত করতে বিশেষ ভূমিকা রাখবে।” তিনি আরো বলেন, “টেকসই উন্নয়নের প্রেক্ষাপটে শূন্য-অপচয় বিষয়ক কর্মকান্ডকে এগিয়ে নিয়ে যেতে এই অ্যাডভাইজরী বোর্ড একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে আমি আশা করি।” অপচয় হ্রাস, সামগ্রী ব্যবহার ও উৎপাদন নকসা পুনঃপ্রণয়ন, সার্কুলার অর্থনীতি গড়ে তোলা ও ভোক্তাদের পছন্দের ক্ষেত্রে টেকসই সমাধান হিসেবে শূন্য-অপচয়ের ধারণা বিশ্ব ব্যাপী ক্রমাগত জনপ্রিয় হচ্ছে। এই প্রেক্ষিতে জাতি সংঘ মহাসচিব আশা প্রকাশ করেন যে, অঞ্চল ও নারী-পুরুষ ভারসাম্য নিশ্চিতকারি অংশীদারগণকে নিয়ে বিভিন্ন বিষয়ের ভিত্তিতে জাতি সংঘ কতৃক গঠিত এই বোর্ড এই ক্ষেত্রে বিভিন্ন দেশের সর্বোত্তম বিভিন্ন উদ্যোগ, সফল কাহিনী, ও অভিজ্ঞাগুলি তুলে ধরতে এবং স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ে সচেতনতা বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারবে।

জাতি সংঘের এই অ্যাডভাইজরী বোর্ডে ১৩ জন বিশ্বখ্যাত সদস্য রয়েছেন। এঁদের মধ্যে রয়েছেন তুরস্কের ফার্স্ট লেডী মিসেস এমিনে এরদোয়ান যিনি এই বোর্ডের সভাপতি নিযুক্ত হয়েছেন। । অন্যান্য সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন জাতি সংঘ মহাসচিবের পলিসি এক্সিকিউটিভ অফিসের দায়িত্বপ্রাপ্ত আন্ডার-সেক্রেটারী-জেনারেল মি. গাই রাইডার,
আলগ্রামো-র প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী মি. জোসে ম্যানুয়েল মোয়েলার, ইউনূস ইনভায়ার্ণমেন্ট হাব-এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস, ইন্টারন্যাশনাল সলিড ওয়েস্ট অ্যাসোসিয়েশন-এর প্রেসিডেন্ট মি. কার্লোস সিলভা ফিলহো, ইকোনমিয়া সার্কুলার-এর নির্বাহী পরিচালক মিস লরা রেয়েস, দ্য ওয়েস্ট ট্রান্সফরমার্স-এর প্রধান নির্বাহী মিস লারা ভ্যান ড্রুটেন, এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দেলাওয়ারে বিশ্ববিদ্যালয়ের এনার্জি এন্ড দ্য ইনভায়ার্ণমেন্ট বিষয়ের প্রফেসর সালীম আলী।

অ্যাডভাইজরী বোর্ডের আহ্বায়ক হিসেবে জাতি সংঘ মহাসচিব ইউএন-হাবিট্যাট (জাতি সংঘ হিউম্যান সেটলমেন্ট প্রোগ্রাম) ও জাতি সংঘ পরিবেশ কর্মসূচি-র সহায়তায় বোর্ড সদস্যদের নিয়ে জাতি সংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য ২০৩০ সফলভাবে অর্জনের প্রত্যাশা করছেন। এ বছরের সেপ্টেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে জাতি সংঘ মহাসচিবের অংশগ্রহণে বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হবে।

অ্যাডভাইজরী বোর্ড মানুষের মধ্যে এ বিষয়ক সচেতনতা বৃদ্ধি ও প্রাসঙ্গিক তথ্যসমূহ মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে নিয়মিতভাবে বিভিন্ন প্রতিবেদন, সোশ্যাল মিডিয়া, ও ওয়েবসাইট আর্টিকেলসহ বিভিন্ন উপায়ে এই ক্ষেত্রে সর্বোত্তম উদ্যোগ এবং সফল কাহিনী ও অভিজ্ঞাগুলি তুলে ধরবেন এবং বিভিন্ন দেশে স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন শূন্য-অপচয় উদ্যোগ ও কারিগরী সমীক্ষার পক্ষে প্রচারণা চালাবেন। বিশেষ করে প্রতি বছর ৩০ মার্চকে “আন্তর্জাতিক শূন্য-অপচয় দিবস” হিসেবে বৈশ্বিকভাবে পালন করা হবে।

গত ৩০ মার্চ ২০২৩ প্রথম আন্তর্জাতিক শূন্য-অপচয় দিবসে জাতি সংঘ মহাসচিব “অ্যাডভাইজরী বোর্ড অব এমিনেন্ট পার্সন্স অন জিরো ওয়েস্ট” গঠনের ঘোষণা দেন।