ঢাকা ০২:৫৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে সাংবাদিকদের পিটিয়ে আহত

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৯:৫৮:৫২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ এপ্রিল ২০২৩
  • ৩৩৩ বার পড়া হয়েছে

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে বিএনপি নেতাকর্মীদের বহনকারী গাড়ি (মাইক্রোবাস) ভাঙচুরের ভিডিও ধারন করতে গিয়ে ক্ষমতাসীন দলের কর্মীদের হামলায় আহত হয়েছেন দুই সাংবাদিক। আহতরা হলেন দৈনিক বাংলা পত্রিকার রাজবাড়ী জেলা প্রতিনিধি মইনুল হক মৃধা ও দৈনিক ইনকিলাবের গোয়ালন্দ উপজেলা সংবাদদাতা মোজাম্মেল হক লাল্টু। এছাড়াও কর্তব্যরত একাধিক সাংবাদিকের মোবাইল ছিনিয়ে নেয়।

শনিবার (০৮ এপ্রিল) বিকেল ৩টার দিকে গোয়ালন্দ উপজেলা কোর্ট চত্তর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ভাংচুরের শিকার সাদা মাইক্রোবাসটির সামনের, দুই পাশের ও পিছনের গ্লাস ভেঙ্গে গুরিয়ে দেয়া হয়।

স্থানীয়রা ও প্রত্যক্ষদর্শী সংবাদকর্মীরা জানান, শনিবার বিকেলে সারা দেশের ন্যায় গোয়ালন্দেও বিএনপি’র কেন্দ্র ঘোষিত ১০ দফা দাবি বাস্তবায়নে অবস্থান কর্মসূচী ছিল। এই কর্মসূচীকে কেন্দ্র করে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরাও সতর্ক অবস্থানে ছিলেন। গোয়ালন্দ উপজেলা কোর্ট চত্তরে বিএনপি নেতাকর্মী জমায়েত দিবে শুনে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী সেখানে অবস্থান নেয়। বিকেল ৩টার দিকে গোয়ালন্দ উপজেলা কোর্ট চত্তরে বিএনপি নেতাকর্মীদের বহনকারী ঢাকা মেট্রো-চ ১৬-২০২৯ সিরিয়ালের একটি সাদা মাইক্রোবাস আসলে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা ওই গাড়িতে ভাঙচুর শুরু করে।

এসময় কর্মরত সাংবাদিকরা ঘটনাটির ভিডিও ধারন করতে গেলে উচ্ছৃঙ্খল নেতাকর্মীরা সাংবাদিকদের উপর হামলা করে।

হামলায় আহত সাংবাদিকদের উদ্ধার করে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হাসপাতালে নিয়ে গেলে মইনুল হক মৃধাকে ভর্তি ও মোজাম্মেল হক লাল্টুকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

আহত সাংবাদিক মইনুল হক মৃধার স্ত্রী সাবরিন আক্তার এ ঘটনার বিচার দাবি করে বলেন, পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে আজ আমার স্বামী হামলায় আহত হয়েছে। এর যদি বিচার না হয়, এরপর আপনারাও এ রকম হামলার শিকার হবেন। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দেয়া হবে বলে তিনি জানান।

গোয়ালন্দ উপজেলা বিএনপি’র সাধারন সম্পাদক মোশাররফ হোসেন জানান, ভাঙচুরের শিকার মাইক্রোবাসে তাদের কর্মসূচীতে যোগদিতে কয়েকজন নেতা এসেছিল। এছাড়াও তাদের কিছু নেতাকর্মীদের পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয়েছে।
হামলার শিকার হয়ে তারা আর কর্মসূচীতে যোগদিতে পারেননি।

গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোস্তফা মুন্সি জানান, বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। ইতিপূর্বে গোয়ালন্দে এ ধরনে ঘটনা ঘটেনি। দ্রুত সময়ের মধ্যে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের সাথে বসে বিষয়টি মিমাংশা করে ফেলা হবে।

রাজবাড়ীর পাংশায় প্রান্তিক জনকল্যাণ সংস্থা কতৃক আয়োজিত ঈদ পূর্ণমিলন

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে সাংবাদিকদের পিটিয়ে আহত

আপডেট সময় ০৯:৫৮:৫২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ এপ্রিল ২০২৩

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে বিএনপি নেতাকর্মীদের বহনকারী গাড়ি (মাইক্রোবাস) ভাঙচুরের ভিডিও ধারন করতে গিয়ে ক্ষমতাসীন দলের কর্মীদের হামলায় আহত হয়েছেন দুই সাংবাদিক। আহতরা হলেন দৈনিক বাংলা পত্রিকার রাজবাড়ী জেলা প্রতিনিধি মইনুল হক মৃধা ও দৈনিক ইনকিলাবের গোয়ালন্দ উপজেলা সংবাদদাতা মোজাম্মেল হক লাল্টু। এছাড়াও কর্তব্যরত একাধিক সাংবাদিকের মোবাইল ছিনিয়ে নেয়।

শনিবার (০৮ এপ্রিল) বিকেল ৩টার দিকে গোয়ালন্দ উপজেলা কোর্ট চত্তর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ভাংচুরের শিকার সাদা মাইক্রোবাসটির সামনের, দুই পাশের ও পিছনের গ্লাস ভেঙ্গে গুরিয়ে দেয়া হয়।

স্থানীয়রা ও প্রত্যক্ষদর্শী সংবাদকর্মীরা জানান, শনিবার বিকেলে সারা দেশের ন্যায় গোয়ালন্দেও বিএনপি’র কেন্দ্র ঘোষিত ১০ দফা দাবি বাস্তবায়নে অবস্থান কর্মসূচী ছিল। এই কর্মসূচীকে কেন্দ্র করে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরাও সতর্ক অবস্থানে ছিলেন। গোয়ালন্দ উপজেলা কোর্ট চত্তরে বিএনপি নেতাকর্মী জমায়েত দিবে শুনে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী সেখানে অবস্থান নেয়। বিকেল ৩টার দিকে গোয়ালন্দ উপজেলা কোর্ট চত্তরে বিএনপি নেতাকর্মীদের বহনকারী ঢাকা মেট্রো-চ ১৬-২০২৯ সিরিয়ালের একটি সাদা মাইক্রোবাস আসলে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা ওই গাড়িতে ভাঙচুর শুরু করে।

এসময় কর্মরত সাংবাদিকরা ঘটনাটির ভিডিও ধারন করতে গেলে উচ্ছৃঙ্খল নেতাকর্মীরা সাংবাদিকদের উপর হামলা করে।

হামলায় আহত সাংবাদিকদের উদ্ধার করে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হাসপাতালে নিয়ে গেলে মইনুল হক মৃধাকে ভর্তি ও মোজাম্মেল হক লাল্টুকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

আহত সাংবাদিক মইনুল হক মৃধার স্ত্রী সাবরিন আক্তার এ ঘটনার বিচার দাবি করে বলেন, পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে আজ আমার স্বামী হামলায় আহত হয়েছে। এর যদি বিচার না হয়, এরপর আপনারাও এ রকম হামলার শিকার হবেন। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দেয়া হবে বলে তিনি জানান।

গোয়ালন্দ উপজেলা বিএনপি’র সাধারন সম্পাদক মোশাররফ হোসেন জানান, ভাঙচুরের শিকার মাইক্রোবাসে তাদের কর্মসূচীতে যোগদিতে কয়েকজন নেতা এসেছিল। এছাড়াও তাদের কিছু নেতাকর্মীদের পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয়েছে।
হামলার শিকার হয়ে তারা আর কর্মসূচীতে যোগদিতে পারেননি।

গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোস্তফা মুন্সি জানান, বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। ইতিপূর্বে গোয়ালন্দে এ ধরনে ঘটনা ঘটেনি। দ্রুত সময়ের মধ্যে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের সাথে বসে বিষয়টি মিমাংশা করে ফেলা হবে।