ঢাকা ০৯:২৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ীর পাংশায় ৬ মাস বয়সী শিশুর মৃত্যু-পরিবার বলছে হত্যা

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৮:৫৭:২৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
  • ৩৪১ বার পড়া হয়েছে

রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার বাহাদুরপুর ইউনিয়নে ৬ মাস বয়সী আব্দুল্লাহ নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। শিশুটির পিতার পরিবারের দাবি শিশুটির মা মিম নিজেই নিজ সন্তানকে হত্যা করেছে। সোমবার (৬ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে ইউপির বাহাদুরপুর ডাঙ্গীপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

এ বিষয়ে নিহত আব্দুল্লার পিতা আলামিন বলেন, আমার বউ মিমই আমার ছেলেকে মেরে ফেলেছে। ঘটনার সময় আমি বাড়িতে ছিলাম না। আমার বউ বিভিন্ন সময় আমাকে দেখে নেবে আমার সন্তানকে দেখে নেবে বলে হুমকি দিত। গত তিন মাস আগে তিন মাস বয়সী আমার শিশু সন্তানকে রেখে চলে যায়। পরে কুষ্টিয়া কোর্টে গিয়ে যৌতুকের মামলা করে। গত ২৯ তারিখে কোর্টে মিমাংসার মাধ্যমে ওকে ফিরিয়ে আনি। এরপরও দুই বার পালিয়ে যাবার চেষ্টা করেছিলো। পথ থেকে ফিরিয়ে আনি।

নিহত আব্দুল্লাহর দাদা হাবিবর প্রামানিক বলেন, আমার নাতি ছেলেকে আমার বউমাই হত্যা করেছে।

এলাকাবাসীরা বলেন, আলামিনের স্ত্রী মিম উচ্ছৃঙ্খল প্রকৃতির ছিলো। ও নিজেই হয়তো ওর ছেলেকে গলা টিপে হত্যা করেছে।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সহকারি পুলিশ সুপার (পাংশা সার্কেল) সুমন কুমার সাহা সহ পাংশা মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং নিহতের পিতা-মাতা ও দাদা-দাদিকে জিজ্ঞাস্বাবাদের জন্য নিজেদের হেফাজতে নিয়েছেন।

তবে এটি হত্যা নাকি স্বাভাবিক মৃত্যু সেটা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
এ ব্যাপারে পাংশা মডেল থানা পুলিশ তাৎক্ষণিক কোন বক্তব্য দিতে রাজি হননি।

জনপ্রিয় সংবাদ

ফরিদপুর- ২ আসনের জনগণের শান্তি নিশ্চিত করা আমার লক্ষ্য: এমপি লাবু চৌধুরী

রাজবাড়ীর পাংশায় ৬ মাস বয়সী শিশুর মৃত্যু-পরিবার বলছে হত্যা

আপডেট সময় ০৮:৫৭:২৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার বাহাদুরপুর ইউনিয়নে ৬ মাস বয়সী আব্দুল্লাহ নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। শিশুটির পিতার পরিবারের দাবি শিশুটির মা মিম নিজেই নিজ সন্তানকে হত্যা করেছে। সোমবার (৬ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে ইউপির বাহাদুরপুর ডাঙ্গীপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

এ বিষয়ে নিহত আব্দুল্লার পিতা আলামিন বলেন, আমার বউ মিমই আমার ছেলেকে মেরে ফেলেছে। ঘটনার সময় আমি বাড়িতে ছিলাম না। আমার বউ বিভিন্ন সময় আমাকে দেখে নেবে আমার সন্তানকে দেখে নেবে বলে হুমকি দিত। গত তিন মাস আগে তিন মাস বয়সী আমার শিশু সন্তানকে রেখে চলে যায়। পরে কুষ্টিয়া কোর্টে গিয়ে যৌতুকের মামলা করে। গত ২৯ তারিখে কোর্টে মিমাংসার মাধ্যমে ওকে ফিরিয়ে আনি। এরপরও দুই বার পালিয়ে যাবার চেষ্টা করেছিলো। পথ থেকে ফিরিয়ে আনি।

নিহত আব্দুল্লাহর দাদা হাবিবর প্রামানিক বলেন, আমার নাতি ছেলেকে আমার বউমাই হত্যা করেছে।

এলাকাবাসীরা বলেন, আলামিনের স্ত্রী মিম উচ্ছৃঙ্খল প্রকৃতির ছিলো। ও নিজেই হয়তো ওর ছেলেকে গলা টিপে হত্যা করেছে।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সহকারি পুলিশ সুপার (পাংশা সার্কেল) সুমন কুমার সাহা সহ পাংশা মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং নিহতের পিতা-মাতা ও দাদা-দাদিকে জিজ্ঞাস্বাবাদের জন্য নিজেদের হেফাজতে নিয়েছেন।

তবে এটি হত্যা নাকি স্বাভাবিক মৃত্যু সেটা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
এ ব্যাপারে পাংশা মডেল থানা পুলিশ তাৎক্ষণিক কোন বক্তব্য দিতে রাজি হননি।