ঢাকা ১১:৪৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ীতে দুই দিনব্যাপী বাংলা উৎসব

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৮:৪৫:২০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩
  • ২৫১ বার পড়া হয়েছে

রাজবাড়ী প্রতিনিধি, সোহাগুর রহমান, শুদ্ধ ও যথাযথভাবে মাতৃভাষার চর্চা এবং বাংলা সাহিত্যের প্রতি তরুণ প্রজন্মকে আকৃষ্ট করা ও বিশ্বের অন্যতম ভাষা হিসাবে বাংলা ভাষার মর্যাদা রক্ষায় রাজবাড়ীতে দুই দিনব্যাপী বাংলা উৎসব-১৪২৯ শুরু হয়েছে।

শুক্রবার সকাল ১১টায় রাজবাড়ী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণে রাজবাড়ী একাডেমীর আয়োজনে এই অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানটি উদ্বোধন করেন কথা সাহিত্যিক ও সাংবাদিক আনিসুল হক। এ সময় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী।

রাজবাড়ী একডেমীর সভাপতি সৈয়দ সিদ্দিকুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন রাজবাড়ী একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক ফরিদপুর মেডিকেল কলেজের মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মো. ইকবাল হোসেন। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন রাজবাড়ী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ কে এম শফিকুল মোরশেদ আরুজ, শিক্ষানুরাগী ও সমাজসেবক ডা. এনএএম মোমেনুজ্জামান, শিক্ষানুরাগী নাসিম শফি, রাজবাড়ী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহবুবা আক্তার প্রমূখ।

সকালে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে দেখা যায়, বাংলা উৎসবকে ঘিরে শত শত শিক্ষার্থী ও অভিভাবকের মিলনমেলা তৈরি হয়েছে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে। দেয়াল পত্রিকা, দেশি হস্তশিল্পের স্টল, মাটির পাত্রে চা, কাচারি ঘরে মীর মশাররফ হোসেনের বই, পুরাতন পত্রিকা, শিশুদের খেলার উপকরণ সবই উৎসব অঙ্গণে।

সকাল ১১টার দিকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা রাজবাড়ীর প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এরপর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

জানা যায়, ২৭ ও ২৮ জানুয়ারি দুই দিনব্যাপী অষ্টম বাংলা উৎসবের আয়োজন করেছে রাজবাড়ী একডেমী। উৎসবের দুই দিনে বিভিন্ন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে।

৫০ ধরণের প্রতিয়োগিতায় রাজবাড়ীর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবেন। ভাষা ও সাহিত্যের ওপর একটি দৃষ্টিনন্দন প্রদর্শনী রয়েছে। রয়েছে আবৃত্তি, উচ্চারণ, শিক্ষার্থীদের জন্য অনুপ্রেরণামূলক সেশন ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা।

প্রতিযোগিতায় প্রথম থেকে দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থীরা ‘হড়াই’ গ্রুপ, তৃতীয় থেকে পঞ্চম  শ্রেণির শিক্ষার্থীরা ‘গড়াই’ গ্রুপ, ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা ‘ কুমার’ গ্রুপ, নবম শ্রেণি থেকে এসএসসি শিক্ষার্থীরা ‘চন্দনা’ গ্রুপ, একাদশ থেকে স্নাতকের শিক্ষার্থীরা ‘পদ্মা’ গ্রুপে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করবেন। আগামীকাল শনিবার রাতে এই উৎসব শেষ হবে।

জনপ্রিয় সংবাদ

ফরিদপুর- ২ আসনের জনগণের শান্তি নিশ্চিত করা আমার লক্ষ্য: এমপি লাবু চৌধুরী

রাজবাড়ীতে দুই দিনব্যাপী বাংলা উৎসব

আপডেট সময় ০৮:৪৫:২০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩

রাজবাড়ী প্রতিনিধি, সোহাগুর রহমান, শুদ্ধ ও যথাযথভাবে মাতৃভাষার চর্চা এবং বাংলা সাহিত্যের প্রতি তরুণ প্রজন্মকে আকৃষ্ট করা ও বিশ্বের অন্যতম ভাষা হিসাবে বাংলা ভাষার মর্যাদা রক্ষায় রাজবাড়ীতে দুই দিনব্যাপী বাংলা উৎসব-১৪২৯ শুরু হয়েছে।

শুক্রবার সকাল ১১টায় রাজবাড়ী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণে রাজবাড়ী একাডেমীর আয়োজনে এই অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানটি উদ্বোধন করেন কথা সাহিত্যিক ও সাংবাদিক আনিসুল হক। এ সময় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী।

রাজবাড়ী একডেমীর সভাপতি সৈয়দ সিদ্দিকুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন রাজবাড়ী একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক ফরিদপুর মেডিকেল কলেজের মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মো. ইকবাল হোসেন। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন রাজবাড়ী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ কে এম শফিকুল মোরশেদ আরুজ, শিক্ষানুরাগী ও সমাজসেবক ডা. এনএএম মোমেনুজ্জামান, শিক্ষানুরাগী নাসিম শফি, রাজবাড়ী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহবুবা আক্তার প্রমূখ।

সকালে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে দেখা যায়, বাংলা উৎসবকে ঘিরে শত শত শিক্ষার্থী ও অভিভাবকের মিলনমেলা তৈরি হয়েছে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে। দেয়াল পত্রিকা, দেশি হস্তশিল্পের স্টল, মাটির পাত্রে চা, কাচারি ঘরে মীর মশাররফ হোসেনের বই, পুরাতন পত্রিকা, শিশুদের খেলার উপকরণ সবই উৎসব অঙ্গণে।

সকাল ১১টার দিকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা রাজবাড়ীর প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এরপর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

জানা যায়, ২৭ ও ২৮ জানুয়ারি দুই দিনব্যাপী অষ্টম বাংলা উৎসবের আয়োজন করেছে রাজবাড়ী একডেমী। উৎসবের দুই দিনে বিভিন্ন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে।

৫০ ধরণের প্রতিয়োগিতায় রাজবাড়ীর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবেন। ভাষা ও সাহিত্যের ওপর একটি দৃষ্টিনন্দন প্রদর্শনী রয়েছে। রয়েছে আবৃত্তি, উচ্চারণ, শিক্ষার্থীদের জন্য অনুপ্রেরণামূলক সেশন ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা।

প্রতিযোগিতায় প্রথম থেকে দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থীরা ‘হড়াই’ গ্রুপ, তৃতীয় থেকে পঞ্চম  শ্রেণির শিক্ষার্থীরা ‘গড়াই’ গ্রুপ, ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা ‘ কুমার’ গ্রুপ, নবম শ্রেণি থেকে এসএসসি শিক্ষার্থীরা ‘চন্দনা’ গ্রুপ, একাদশ থেকে স্নাতকের শিক্ষার্থীরা ‘পদ্মা’ গ্রুপে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করবেন। আগামীকাল শনিবার রাতে এই উৎসব শেষ হবে।